জাস্টিস চৌধুরী অন্তর্ধান রহস্য – ২

– নমস্কার মোনাদেবী, আমি তিনকড়ি হালদার, থানা থেকে আসছি, ব্যারিস্টার শাসমল আমাদের আপনার কাছে পাঠিয়েছেন।

পাশের ভদ্রলোক কোন কথা বলছেন না, জামা কাপড় তো ভালোই পরেছে, কিন্তু কিরকম যেন একটা পাগলামীর লক্ষণ আছে চোখে মুখে।

– আমরা ভিতরে আস্তে পারি কি?

– তার আগে বলুন উনি কে, রিপোর্টার টিপোরটার নন তো?

– না না, এ ব্যাপারে এখন বাইরের কেউ জানেনা, বাহাত্তর ঘন্টা না হলে তো মিসিং ডিক্লিয়ার করা যাচ্ছেনা, তার আগে আপনার কাছে কিছু সাহায্যের ব্যাপারে এলাম।

– সেটা ঠিক, কিন্তু ইনি কে?

– ইনি আমার বন্ধু, এই সব হাইপ্রোফাইল কেস যেগুলো ধরুন সল্ভ করতেই হবে, সেখানে ইনার হেল্প নিয়েথাকি আর কি।

– অফিসিয়ালি?

– কিযে বলেন, এনার মত লোকেদের জন্য রীতিমত বাজেট থাকে আমাদের।

– আসুন আপনারা, বসুন, আপনার নামটা জানা হলনা।

– ওইযে, তিন …

– আপনার নয়, উনার।

– ওহ, উনি মৃণ্ময়।

– বোবা?

– না, হেসে ফেললেন তিনকড়ি বাবু, কম কথা বলেন নতুন জায়গায়।

মৃণ্ময় বসলেন না, এদিক ওদিক ঘুরে ঘুরে দেখতে থাকলেন।

– আপনি একা থাকেন?

– হ্যাঁ।

– অবিবাহিত?

– না, বিধবা, আমার স্বামী আর্মিতে ছিলেন, মারা গেছেন কার্গিলে।

– ও, সরি…

– ঠিক আছে…

– আপনার বয়ফ্রেন্ড আছে? মৃন্ময় জিগ্যাসা করল কিচেন থেকে।

– মানে? তার সাথে আপনাদের কেসের কি কানেকশন?

– না, এমনি, জিগ্যাসা করলাম, একা থাকেন ভয় করেনা? বাড়ীতে কাউকে ডাকেন টাকেন না?

– মানে? আমার সেরকম কোন বন্ধু নেই, বাড়ীতে কাউকে ডাকিও না।

– কাল বাড়ীতে পার্টী ছিলনা?

– না, আমি একাই ছিলাম, কেন?

– আপনি কি সবসময় বাড়ীতেও সেজে গুজে থাকেন? ঘরের পোষাকে, তবুও লিপস্টিক, মেকআপ।

– সাজতে ভালোলাগে আমার, সময়ও কাটে, এরকমই থাকি আমি, অফিসে সাজতে পারিনা, সঙ্গত কারনেই, তাই বাড়ি এসে, একটু সাজি, কোন অন্যায় আছেকি তাতে?

মোনালিসার পারদ চরছিল, মৃন্ময় ভাবলেশহীন।

– না, কালও সেজেছিলেন?

– হ্যাঁ।

– আপনি হুইস্কি খান?

– মাঝে মাঝে, আজ খাইনি।

– জানি, সিঙ্কে কালকের গ্লাস আছে দেখলাম।

– আর কিছু জানার আছে আপনাদের?

– না আপনার কিছু সাহায্য তো লাগবে আমাদের, মিস্টার চৌধুরীর ব্যাপারে জানতে।

– জাস্টিস চৌধুরী।

– হ্যাঁ, সরি, আপনার বাথরুম ব্যবহার করতে পারি? রাস্তার বিরিয়ানী খেয়ে থেকে পেট টা ভালো যাচ্ছে না।

– আহ মৃন্ময়… তিনকড়ি অপ্রস্তুত।

– দেখুন তিনকড়ি বাবু, আপনার এই সাইডকিকটিকে বলুন, আমি একা মেয়ে, আমি চাইনা আমার বাথরুম কোন পুরুষ ব্যবহার করুক, মাফ করবেন।

– না না, ঠিক আছে, মৃন্ময় কি করব?

– বাইরে একটা সুলভ দেখেছি, ওখানে যাই, তুই আয় আমার সাথে, আমরা পনের মিনিটে আসছি মোনা দেবী।

 

তিনকড়ি আর মৃণ্ময় রাস্তা দিয়ে হাঁটছে, একটা সিগারেট ধরাল মৃন্ময়।

– সিগারেট টা নে খেলে না প্রেশারটা ঠিক আসেনা বুঝলি!

– জলদি কর, ভদ্রমহিলার হেল্প লাগবে আমাদের।

– হুম্ম, উনি মিথ্যা বলছেন।

– মানে?

– বয়ফ্রেন্ড আছে উনার, আর কাল রাতে এসেওছিল।

– মানে? কি করে বুঝলি?

– সিঙ্কে গ্লাস দেখলাম, হুইস্কির তলানি ছিল।

– তো উনিও তো খেতে পারেন…

– না, গ্লাসে লিপস্টিকের দাগ ছিলনা বন্ধু।

সুলভ এসে গেছে, মৃণ্ময় ঢুকে গেল, বাইরে দাঁড়িয়ে তারজন্য অপেক্ষা করতে থাকল তিনকড়ি।

____

মোনার ঘরের বাইরে এসে বেল বাজাল তিনকড়ি।

– ভিতরে আসুন।

– মোনাদেবী আপনাকে একটু আমাদের সাথে যেতে হবে।

– আমাকে কি আপনারা এরেস্ট করছেন নাকি?

– না না, আপনি শুধু আমাদের সঙ্গে নিয়ে যাবেন জাস্টিস চৌধুরীর অফিসে, ওখানে উনার কাগজপত্র দেখব, চাবিতো আপনার কাছেই থাকে।

– কাল সকাল অবধি অপেক্ষা করা যেত না?

– কাল অবধি যদি দেরী হয়ে যায় মোনাদেবী?

– ঠিক আছে, আমাকে আবার পৌঁছে দিয়ে যাবেন তো?

– নিশ্চয়, সে আর বলতে?

– আর আপনার বন্ধুটিও যাচ্ছেন?

– হ্যাঁ, ও একটু হেল্প আর কি…

– বুঝেছি, একটু বসুন, চেঞ্জ করে আসছি।

– নিশ্চয়।

মোনা, তিনকড়ি আর মৃণ্ময় এর সাথে বেরিয়ে এল। গাড়ী বাড়ীর বাইরেই ছিল, তিনকড়ি সামনে ড্রাইভারের পাশে আর পিছনে মোনালিসা আর মৃন্ময়।

– আপনি আপনার বসকে ভালোবাসতেন, তাইনা মোনা?

মৃন্ময়ের প্রশ্ন শুনে চমকে তারদিকে ক্রূর দৃষ্টিতে তাকাল মোনালিসা।

 

You can follow me on Twitter, add me to your circle on Google+ or like our Facebook page to keep yourself updated on all the latest from Photography, Technology, Microsoft, Google, Apple and the web.

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s